Who Wrote The Bengali Poem Jhinge Phool | ঝিঙে ফুল বাংলা কবিতা

Jhinge Phool is a famous Bengali poem written by Kaji Nazrul Islam, ছোটদের জনপ্রিয় কবিতার মধ্যে "ঝিঙে ফুল" কবিতাটি খুবই উল্লেখযোগ্য, কবিতাটি রচনা করেন বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম। এই লেখাটির মাধ্যমে ঝিঙে ফুল কবিতাটি ও বিদ্রোহী কবির সংক্ষিপ্ত জীবন কাহিনী আপনাদের সামনে তুলে ধরা হল। আমাদের লেখাটি পরিয়া যদি আপনার ভালো লাগিয়া থাকে, তাহলে অবশ্যই কমেন্ট ও শেয়ার করিতে ভুলিবেন না এছারা আরও নানান ধরনের Bangla Love Story, Jokes in Bengali এবং Premer Golpo পড়ার জন্য আমাদের ব্লগ টিকে সাবস্ক্রাইব করতে পারেন।

Who wrote the Bengali poem jhinge phool


ঝিঙে ফুল! ঝিঙে ফুল! 

সবুজ পাতার দেশে ফিরোজিয়া ফিঙে-কুল

ঝিঙে ফুল। 


গুল্মে পর্ণ 

লতিকার কর্ণে 

ঢল ঢল স্বর্ণে 

ঝলমল দোলে দুল- 

ঝিঙে ফুল। 


পাতার দেশের পাখী বাঁধা হিয়া বোঁটাতে, 

গান তব শুনি সাঁঝে তব ফুটে ওঠাতে। 

পউষের বেলা শেষ 

পরি' জাফরানি বেশ 

মরা মাচানের দেশ 

ক'রে তোল মশগুল- 

ঝিঙে ফুল। 


শ্যামলী মায়ের কোলে সোনামুখ খুকু-রে 

আলুথালু ঘুমু যাও রোদে-গলা দুকুরে। 


প্রজাপতি ডেকে যায়- 

বোঁটা ছিঁড়ে চ'লে আয়।

আসমানের তারা চায়- 

'চ'লে আয় এ অকূল!

ঝিঙে ফুল।। 


তুমি বল-'আমি হায় 

ভালোবাসি মাটি-মায়, 

চাই না ও অলকায়- 

ভালো এই পথ-ভুল।

ঝিঙে ফুল।


আরও পড়ুনঃ গল্পঃ অশোক ফুলের মধু

বিংশ শতাব্দীতে বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের মর্যাদা ও গুরুত্ব ছিল অপরিসীম। একাধারে কবি, সাহিত্যিক, সংগীতজ্ঞ, সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ এবং সৈনিক হিসেবে অন্যায় ও অবিচারের বিরুদ্ধে নজরুল সর্বদাই রুখে দাঁড়াতেন। তার গানে ও কবিতায় বারবার এই মনোভাবই প্রতিফলিত হয়েছে। অগ্নিবীণা হাতে তার প্রবেশ ও ধূমকেতুর মতো তার প্রকাশ। যেমন লেখাতে ছিলেন বিদ্রোহী, তেমনই জীবনের সমস্ত – কাজেও, তাই তাঁকে "বিদ্রোহী কবি" বলে সন্মধন করা হয়। ১৯২২ খ্রিস্টাব্দে তার লেখা "বিদ্রোহী" কবিতা টি প্রকাশিত হয়। এই কবিতায় নজরুল নিজেকে বর্ণনা করেন:-


আমি বঞ্চিত ব্যথা পথবাসী চির গৃহহারা যত পথিকের,

আমি অবমানিতের মরম বেদনা, বিষ জ্বালা, চির লাঞ্ছিত বুকে গতি ফের

আমি অভিমানী চির ক্ষুব্ধ হিয়ার কাতরতা, ব্যথা সুনিবিড়,

চিত চুম্বন-চোর-কম্পন আমি থর-থর-থর প্রথম প্রকাশ কুমারীর!

আমি গোপন প্রিয়ার চকিত চাহনি, ছল করে দেখা অনুখন,

আমি চপল মেয়ের ভালবাসা তার কাকন চুড়ির কন-কন।

মহা-বিদ্রোহী রণক্লান্ত

আমি সেই দিন হব শান্ত।

যবে উৎপীড়িতের ক্রন্দন-রোল আকাশে-বাতাসে ধ্বনিবে না,

অত্যাচারীর খড়ুগ কৃপাণ ভীম রণ, ভূমে রণিবে না-

বিদ্রোহী রণক্লান্ত

আমি সেই দিন হব শান্ত।

আমি চির বিদ্রোহী বীর 

বিশ্ব ছাড়ায়ে উঠিয়াছি একা চির উন্নত শির!

আরও পড়ুনঃ 30 Best Bengali Sweets

নজরুল ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার আসানসোল মহকুমার চুরুলিয়া গ্রামের এক দরিদ্র মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার প্রাথমিক শিক্ষা ছিল ধর্মীয়। ছোট বেলায় বিভিন্ন থিয়েটার দলের সাথে কাজ করতে যেয়ে তিনি কবিতা, নাটক এবং সাহিত্য সম্বন্ধে প্রচুর জ্ঞান লাভ করেন। পরবর্তী সময়ে ভারতীয় সেনাবাহিনীতে কিছুদিন কাজ করার পর তিনি সাংবাদিকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নেন। এইসময় তিনি কলকাতাতেই থাকতেন এবং তিনি ব্রিটিশদের শাসনের বিরুদ্ধে প্রত্যক্ষ সংগ্রামে অবতীর্ণ হন। তখন তিনি প্রকাশ করেন বিদ্রোহী কবিতা। জেলে বন্দী হবার পর লিখেন রাজবন্দীর জবানবন্দী, এই সব সাহিত্যকর্মের প্রধান উদ্দেশ্য সাম্রাজ্যবাদের বিরোধিতা করা। মুসলিম সমাজ এবং অবহেলিত ভারতীয় জনগণের সাথে তার বিশেষ সুসম্পর্ক ছিল। তার সাহিত্যকর্মে প্রাধান্য পেয়েছে মুক্তি, বিদ্রোহ এবং Valobasha, ধর্মীয় লিঙ্গভেদের বিরুদ্ধেও তিনি অনেক কবিতা রচনা করেন। সঙ্গীত, ছোটগল্প, উপন্যাস, নাটক লিখলেও তিনি মূলত কবি হিসেবেই বেশি পরিচিতি লাভকরেন। বাংলা কাব্যে তিনি এক নতুন ধারার জন্ম দেন। ইসলামী সঙ্গীত তথা গজল, এর পাশাপাশি তিনি অনেক উৎকৃষ্ট শ্যামা সংগীত ও হিন্দু ভক্তিগীতিও রচনা করেন। নজরুল প্রায় ৩০০০ গান রচনা করেছেন যেগুলো এখন নজরুল সঙ্গীত বা "নজরুল গীতি" নামে পরিচিত এবং উভয় বাংলাতে বিশেষ জনপ্রিয়।


@ 👉 Jhinge Phool কবিতাটিপড়ে যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই শেয়ার এবং কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না.....

Post a Comment

Appreciate Your Valuable Feedback. I Hope You Like Post And Subcribe Our Blog. Please DO NOT SPAM - Spam Comments Will Be Deleted Immediately.

Previous Post Next Post