Independence Day Poem in Bengali | Shadhinota Kobita Bangla

Independence Day Poem in Bengali : সকলকে জানাই ৭৫তম স্বাধীনতা দিবসের আন্তরিক শুভেচ্ছা। স্বাধীনতা দিবস হল ভারতীয় প্রজাতন্ত্রের একটি জাতীয় দিবস। ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট ভারত ইংরেজদের শাসনকর্তৃত্ব থেকে মুক্ত হয়ে স্বাধীনতা অর্জন করেছিল। সেই ঘটনাটিকে চির স্মরণীয় করে রাখার জন্য প্রতি বছর ১৫ অগাস্ট তারিখটি স্বাধীনতা দিবস হিসেবে পালন করা হয়।
আজকে আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করবো Shadhinota Kobita Bangla অর্থাৎ স্বাধীনতা দিবসের কিছু বাছাই করা কবিতা। যদি কবিতা গুলো ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই মন্তব্য করে জানাবেন এবং শেয়ার করবেন।

{tocify} $title={Table of Contents}

Independence Day Poem in Bengali

Freedom Independence Day Poem in Bengali 


চিত্ত যেথা ভয়শূন্য
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

চিত্ত যেথা ভয়শূন্য, উচ্চ যেথা শির,
জ্ঞান যেথা মুক্ত, যেথা গৃহের প্রাচীর
আপন প্রাঙ্গণতলে দিবসশর্বরী
বসুধারে রাখে নাই খন্ড ক্ষুদ্র করি,
যেথা বাক্য হৃদয়ের উৎসমুখ হতে
উচ্ছ্বসিয়া উঠে, যেথা নির্বারিত স্রোতে
দেশে দেশে দিশে দিশে কর্মধারা ধায়
অজস্র সহস্রবিধ চরিতার্থতায়–
যেথা তুচ্ছ আচারের মরুবালুরাশি
বিচারের স্রোতঃপথ ফেলে নাই গ্রাসি,
পৌরুষেরে করে নি শতধা; নিত্য যেথা
তুমি সর্ব কর্ম চিন্তা আনন্দের নেতা–
নিজ হস্তে নির্দয় আঘাত করি, পিতঃ,
ভারতেরে সেই স্বর্গে করো জাগরিত।

স্বাধীনতা কবিতা কাজী নজরুল ইসলাম


কারার ঐ লৌহকপাট
কাজী নজরুল ইসলাম

কারার ঐ লৌহকপাট,
ভেঙ্গে ফেল কর রে লোপাট,
রক্ত-জমাট শিকল পূজার
পাষাণ-বেদী।
ওরে ও তরুণ ঈশান,

বাজা তোর প্রলয় বিষাণ
ধ্বংস নিশান উড়ুক
প্রাচীর প্রাচীর ভেদি।

গাজনের বাজনা বাজা,
কে মালিক, কে সে রাজা,
কে দেয় সাজা মুক্ত
স্বাধীন সত্যকে রে?
হা হা হা পায় যে হাসি,
ভগবান পরবে ফাঁসি,
সর্বনাশী শিখায় এ হীন
তথ্য কে রে!

ওরে ও পাগলা ভোলা,
দে রে দে প্রলয় দোলা,
গারদগুলা জোরসে ধরে
হেচ্কা টানে
মার হাঁক হায়দারী হাঁক,
কাধে নে দুন্দুভি ঢাক
ডাক ওরে ডাক, মৃত্যুকে
ডাক জীবন পানে।

নাচে ওই কালবোশাখী,
কাটাবী কাল বসে কি
দেরে দেখি ভীম কারার ঐ
ভিত্তি নাড়ি
লাথি মার ভাঙ্গরে তালা,
যত সব বন্দী

শালায়-আগুন-জ্বালা,
আগুন-জ্বালা,
ফেল উপাড়ি।।

Read More:

Shadhinota Kobita Bangla 

স্বাধীনতা তুমি
শামসুর রাহমান

স্বাধীনতা তুমি
রবিঠাকুরের অজর কবিতা, অবিনাশী গান।
স্বাধীনতা তুমি
কাজী নজরুল ঝাঁকড়া চুলের বাবরি দোলানো
মহান পুরুষ, সৃষ্টিসুখের উল্লাসে কাঁপা-
স্বাধীনতা তুমি
শহীদ মিনারে অমর একুশে ফেব্রুয়ারির উজ্জ্বল সভা
স্বাধীনতা তুমি
পতাকা-শোভিত শ্লোগান-মুখর ঝাঁঝালো মিছিল।
স্বাধীনতা তুমি
ফসলের মাঠে কৃষকের হাসি।
স্বাধীনতা তুমি
রোদেলা দুপুরে মধ্যপুকুরে গ্রাম্য মেয়ের অবাধ সাঁতার।
স্বাধীনতা তুমি
মজুর যুবার রোদে ঝলসিত দক্ষ বাহুর গ্রন্থিল পেশী।
স্বাধীনতা তুমি
অন্ধকারের খাঁ খাঁ সীমান্তে মুক্তিসেনার চোখের ঝিলিক।
স্বাধীনতা তুমি
বটের ছায়ায় তরুণ মেধাবী শিক্ষার্থীর
শানিত কথার ঝলসানি-লাগা সতেজ ভাষণ।
স্বাধীনতা তুমি
চা-খানায় আর মাঠে-ময়দানে ঝোড়ো সংলাপ।
স্বাধীনতা তুমি
কালবোশেখীর দিগন্তজোড়া মত্ত ঝাপটা।
স্বাধীনতা তুমি
শ্রাবণে অকূল মেঘনার বুক
স্বাধীনতা তুমি পিতার কোমল জায়নামাজের উদার জমিন।
স্বাধীনতা তুমি
উঠানে ছড়ানো মায়ের শুভ্র শাড়ির কাঁপন।
স্বাধীনতা তুমি
বোনের হাতের নম্র পাতায় মেহেদীর রঙ।
স্বাধীনতা তুমি বন্ধুর হাতে তারার মতন জ্বলজ্বলে এক রাঙা পোস্টার।
স্বাধীনতা তুমি
গৃহিণীর ঘন খোলা কালো চুল,
হাওয়ায় হাওয়ায় বুনো উদ্দাম।
স্বাধীনতা তুমি
খোকার গায়ের রঙিন কোর্তা,
খুকীর অমন তুলতুলে গালে
রৌদ্রের খেলা।
স্বাধীনতা তুমি
বাগানের ঘর, কোকিলের গান,
বয়েসী বটের ঝিলিমিলি পাতা,
যেমন ইচ্ছে লেখার আমার কবিতার খাতা।

স্বাধীনতা দিবস ...
- সৌম্যকান্তি চক্রবর্তী

স্বাধীনতা দিবসে মন ...
খুশিতে উচ্ছ্বসিত !
স্বাধীন দেশের জন্মলগ্নে
চঞ্চল হয় চিত্ত !
শিহরিত তনুমন ..
ভাবে আজ এই দিন
আমার ভারত হয়েছিল স্বাধীন ..
কত মানুষের আশা আকাঙ্খার
পূরণের সেই দিনে ...
কত সন্তানহারা পিতা মাতা ...
কত স্বামীহারা স্ত্রী ...
সান্ত্বনা পেল মনে মনে ...
কত শত লোক খুশিতে পাগল !
ওড়ায় জাতীয় পতাকা ...
স্বাধীন দেশের নাগরিকবোধে
মনেতে খুশির রেখা ...
দুইশত সাল ফিরিঙ্গী লোকে
দেশটাকে খেল লুটে !
আজ আমার দেশ , আমার কথার
মূল্য তো আছে বটে ...
আজ আমি স্বাধীন ;
স্বাধীন চিন্তা , স্বাধীন মূল্যবোধ ...
আমাকেই আজ করে যেতে হবে ,
মায়ের ঋণের শোধ ..
আমি আজ খুশি স্বতন্ত্রতায়,
খুশি নয় সব কাজে !
ভারত আমার এগিয়ে চলুক
সাজুক নতুন সাজে ...
সচেতনতায় আধুনিকতায়
জ্ঞানে আর প্রগতিতে ..
সততায় আর ন্যায়নিষ্ঠায়
নাম চাই পৃথিবীতে !
তাই আজ আমি দৃপ্তকন্ঠে ,
জয়হিন্দ বলে ফেলি …
কত শহীদের রক্তে দেশের ,
মুক্তি .. কি করে ভুলি ?

জয় হিন্দ ... বন্দেমাতরম ..
ভারতমাতা কি জয় .....

15 August Independence Day Poem in Bengali 


স্বাধীনতা"

স্বাধীনতা তুমি লাল সবুজের রক্তে আঁকা পতাকা।
স্বাধীনতা তুমি স্বপ্ন বিলাসী মন ময়ুরীর পাখা।
স্বাধীনতা তুমি পূর্ব দিগন্তে রক্তিম সূর্যের আভা।
স্বাধীনতা তুমি পশ্চিম দিগন্তে গোধূলি লগনের মায়া।

স্বাধীনতা তুমি হাজার বছরের স্বপ্নে আঁকা ছবি।
স্বাধীনতা তুমি পূর্ব দিগন্তে সোনালী স্বপ্নের রবি।
স্বাধীনতা তুমি নীল আকাশে রূপালী মেঘের ছায়া।
স্বাধীনতা তুমি সবুজ মাঠে সোনালী ফসলের শোভা।

স্বাধীনতা তুমি আষাঢ় শ্রাবণে অজস্র ঝরা বৃষ্টি।
স্বাধীনতা তুমি জীবনের বিনিময়ে বিস্ফোরণী সৃষ্টি।
স্বাধীনতা তুমি ক্লান্ত দুপুরে বট বৃক্ষের ছায়া।
স্বাধীনতা তুমি নব যৌবন আর উচ্ছল প্রেমের মায়া।

স্বাধীনতা তুমি লাখো শহীদের সংগ্রামী অভিযান।
স্বাধীনতা তুমি লাখো জনতার যুদ্ধে যাওয়ার ইতিহাস
স্বাধীনতা তুমি লাখো শহীদের বিসর্জিত জীবন।
স্বাধীনতা তুমি লাখো জনতার উৎসর্গীত মরণ।

স্বাধীনতা তুমি দামাল ছেলেদের জীবনের জয়গান।
স্বাধীনতা তুমি সন্তান হারানো মায়ের আর্তনাদ।
স্বাধীনতা তুমি ভাই হারানো বোনের আহাজারি।
স্বাধীনতা তুমি মা হারানো সন্তানের কান্নাকাটি।

স্বাধীনতা তুমি সোনালী সকালের বিজয়ের হাতছানি।
স্বাধীনতা তুমি যুবক যুবতির উচ্ছাস মাখা হাসি।
স্বাধীনতা তুমি নদীর কলতান মাঝির মুখের ভাটিয়ালী।
স্বাধীনতা তুমি কৃষানীর বুকে কৃষকের হাতছানি।

স্বাধীনতা তুমি স্বামী হারানো বিধবার আর্তনাদ।
স্বাধীনতা তুমি শোষণের বিরুদ্ধে বিজয়ের অহংকার।
স্বাধীনতা তুমি অন্যায়ের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়লাভ।
স্বাধীনতা তুমি অনেক সমস্যার একটি সমাধান।

স্বাধীনতা তুমি যালিমের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়ের সুখ।
স্বাধীনতা তুমি মায়ের মুখে হাসি ফুটানো ফুল।
স্বাধীনতা তুমি হাজার বছরের স্বপে আঁকা ছবি।
স্বাধীনতা তুমি নতুন প্রভাতের উজ্জ্বল রাঙা রবি।

স্বাধীনতার খোঁজে
বিশ্বনাথ দাস  

স্বাধীনতা কোথায় তুমি আমরা জানি না।
অনেক গুলো বছর গেল , তোমায় পেলাম না।আমরা তোমায় চেয়েছিলাম ,ক্ষেত মজুরের সঙ্গে।কিন্তু ! কিন্তু তুমি থেকেই গেছ , ভূ-স্বামীর অঙ্গে।
ভেবেছিলাম তোমায় পাব কল-কারখানায় শ্রমিকদেরই সার্থে।
কিন্তু ব্যস্ত তুমি শ্রমিক মেরে , শিল্প পতি রক্ষার্থে।
শিক্ষাঙ্গনে পৌছে দেখি , তুমি পাঠশালাতে নেই।
তুমি আছ উচ্চবিত্তর স্কুল আর ইনষ্টিটিউসনেই।
স্বাস্থ্য বলছে হাসপাতালে , তোমায় পাবে না।
নার্সিং হোমই এখন তোমার , নতুন ঠিকানা।
স্বাধীনতা তোমায় খোঁজে , বেকারত্বর চোখ।
যদি বেকার থাকাই স্বাধীনতা , তবে বেকারত্বরই জয় হোক।
ভুলুন্ঠিতা নারী বলে , কোথায় স্বাধীনতা!
স্বাধীনতা নির্যাতিত , পুরুষের উন্মত্ততায়।
শিশুর কান্না থমকে গেছে , বৈষম্যের স্বাধীনতায়।
ক্ষুধার্ত শিশু তোমায় খোঁজে , আস্তকুরের পাতায়।
দলিত খোঁজে স্বাধীনতাস, কোথায় আছ তুমি!
স্বাধীনতা মুচকি হাসে , কহে উচ্চবর্ণে আমি।
সাংবাদিকতার স্বাধীনতা গিয়েছে অস্তাচলে।
সাংবাদিকের ঠাঁই হয়েছে , প্রভুর চরন তলে।
বাক স্বাধীনতা আছে ঠিকই , শাসক নেতার মুখে।
জন গন বললে সত্য , পরবে ভীষণ বিপাকে।
স্বাধীনতা তোমার বসতি , আড়ালে-অন্তরালে।
কোথায় তুমি আটক আছ ,কিসের বেড়া জালে।
স্বাধীনতা আছ জানি, তুমি নয় গো বেপাত্তা।
তাইতো তোমায় খুঁজে বেড়াই , কোথায় তোমার সত্ত্বা।
স্বাধীনতা আছে ঠিকই , নয়তো শুধুই শুন্য।
নিয়ম মেনে লড়াই কর , স্বাধীনতা হবে পূর্ণ।

Independence Day Poem in Bengali : স্বাধীনতা দিবসের কবিতা গুলো কেমন লাগলো মন্তব্য করে জানাবেন এবং বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করবেন।
Prosanta Mondal

Hey Guys My Name Is Prosanta Mondal From Kolkata, India. I Am A Professional Blogger and Creative Content Writer.

Post a Comment

Appreciate Your Valuable Feedback. I Hope You Like Post And Subcribe Our Blog. Please DO NOT SPAM - Spam Comments Will Be Deleted Immediately.

Previous Post Next Post