একটি মিষ্টি প্রেমের গল্প | Bangla Golpo | মামনি ও প্রশান্তর ভালোবাসা

WhatsApp Channel Follow Now
Telegram Group Follow Now

Last updated on July 4th, 2023 at 12:50 am


আজকে আপনাদের জন্য লেখা Bangla Golpo টির নাম “দুটি হৃদয়ের মিলন” গল্পের প্রধান চরিত্রে প্রশান্ত ও মামনি, গল্পের বিষয় – মিষ্টি প্রেম! আরও Love Quotes in Bengali পড়ার জন্য এবং Bangla Shayari Download করার জন্য আমাদের ব্লগ টিকে সাবস্ক্রাইব করতে পারেন, মিষ্টি প্রেমের গল্পটি পরে যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার এবং কমেন্ট করতে ভুলবেন না।


Bangla Golpo

Bangla Golpo – বাংলা গল্প – Bangla Stories

আজকের গল্প – “দুটি হৃদয়ের মিলন”

গল্পটি শুনুন:

গতকাল প্রশান্ত একটা শাড়ি এনে টেবিলে রেখেছে। মামনি রাতে শাড়িটা দেখেছে কিন্তু হাতে নেয়নি। পরেরদিন সকালে ঘরের জিনিসপত্র ঠিক করতে গিয়ে মামনি দেখে টেবিলের উপর শাড়ির পাশে একটা চিঠি। মামনি চিঠিটা হাতে নিয়ে পড়তে শুরু করলো।

” প্রিয় মামনি “

প্রতিদিন ইচ্ছে করেই দেরীতে বাড়ি ফিরি, শুধু তোমার রাগ দেখার জন্য। এমনিতে তুমি এত রাগ করোনা। তবে আমি দেরী করে বাড়ি ফিরলে প্রতিদিন তুমি আমাকে তুলোধুনো করো। এটা আমার কাছে বেশ লাগে। 




তখন ইচ্ছে করে তোমাকে জড়িয়ে ধরতে। কিন্তু তুমি তো জানো! আমি অত রোমান্টিক না। আসলে রোমান্টিক হতে পারিনি। পড়ালেখা আর নিজের চাকরি নিয়েই ব্যস্ত। তুমি ইচ্ছে করে গাল ফুলিয়ে বসে থাকো। বিশ্বাস করো , তোমাকে রাগলে এত সুন্দর লাগে যা বলা বাহুল্য। 

প্রতিটা মেয়েকেই হয়তো রাগলে বেশ লাগে। তা ‘ত’ আর আমার জানা নেই। তবে তোমাকে আমার জানা আছে। রাগলে তোমাকে এত সুন্দর লাগে যা বলে বোঝানো যাবেনা। ইচ্ছে করে প্রতিদিন তোমাকে জড়িয়ে ধরতে। কিন্তু অজানা একটা কারণে পারিনা।

প্রতিদিনই দেরী করে বাড়ি ফেরার এই একটাই কারন। তোমার গম্ভীর মুখখানা দেখার জন্য। যে গম্ভীর মুখের আড়ালে লুকিয়ে আছে অদেখা অজস্র ভালবাসা। খুব ভালবাসি তোমায়, তাই নিজের মনের মধ্যেই লুকিয়ে রাখি আমার ভালবাসা। 

★ আরও পড়ুনঃ ★




আমি খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠি, সকালে সূর্য তোমাকে দেখার আগে আমি দেখি।
আলো আমার ভালো লাগেনা। সারাক্ষণ তোমাকে দেখে। কিন্তু কি করবো বলো। আলো ছাড়া তোমাকে দেখা যায়না। তাই তো আমি সর্বদা আলোর কাছে মাথা নত করি।

বাদ দাও এসব কথা! গতকাল তোমার জন্য যে শাড়িটা এনে টেবিলে রেখেছিলাম। কিন্তু তোমার হাতে আর দেওয়া হয়নি। এখন এই চিরকুট’টা পড়লে হয়তো শাড়িটা হাতে নেবে। নিশ্চয়ই শাড়িটা তোমার পছন্দ হয়নি বুঝি। এরজন্যই এনে তোমার হাতে দেইনি।

আসলে কি জানো, আমি কখন একা শাড়ি কিনিনি। মায়ের জন্য শাড়ি কিনতে গেলে মা’কে সাথে নিয়ে যেতাম। কখন নিজের পছন্দে শাড়ি কিনতে পরিনা। হয়তো তোমার পছন্দ মতো শাড়ি কিনতে পারিনি। তাই তোমার কাছে না দিয়ে টেবিলের উপর রেখে দিয়েছি।

তবে কথা দিলাম, একদিন তোমার জন্য সত্যিই একটা সুন্দর শাড়ী কিনে দেবো। অভ্যাস হয়ে যাবে। তোমাকে চেনা হয়ে যাবে। তোমার পছন্দ অপছন্দের তালিকাও আমার হবে। তবে সেটা কখন হবে বলা যায়না।

” ইতি প্রশান্ত “




চিঠিটা পড়ে মুচকি মুচকি হাসছে মামনি। বেশ অবাক হচ্ছে প্রশান্তর এই চিঠিটা পড়ে। যে প্রশান্ত তাঁর সামনে ভালোভাবে দাঁড়ায় না। সেও মনের কোণে বউয়ের জন্য ভালবাসা লুকিয়ে রাখে। মামনির স্বপ্ন ছিলো তাঁর একটা হ্যান্ডসাম, রোমান্টিক বর হবে।

আর প্রশান্ত! যার ভিতরে কোনো রোমান্টিকতা বলতেই কিছু নাই। কিন্তু এখন দেখে রোমান্টিকতার সিন্ধুক প্রশান্তর ভিতরে। মামনি ও প্রশান্তকে খুব ভালোবাসে। কিন্তু কেউ প্রকাশ করেনা। এখন চিঠিটা পড়ে তাঁর শাড়িটা পরার খুব ইচ্ছে হলো মামনির।

দরজায় টকটক শব্দ করছে। মামনি তড়িঘড়ি করে গিয়ে দরজা খুললো।
মামনির দিকে তাকিয়ে প্রশান্ত পুরো অবাক হয়ে গেলো। প্রশান্ত হয়তো ভুল দরজায় টোকা দিয়েছে।
একবার চোখ কচলিয়ে দেখলো। না! এটা তো মামনিই।

তবুও মামনিকে উপেক্ষা করে রুমে ঢুকে গেলো প্রশান্ত। যেন মামনিকে সে এমন অবস্থায় প্রায়ই দেখে।
মামনিকে সে বুঝতে দেয়নি, যে মামনিকে দেখে সে অবাক হয়েছে ।

খাবার শেষ করে বিছানায় শুয়ে আছে প্রশান্ত।
দরজা বন্ধের শব্দ পেলো। তাঁর মানে মামনি রুমে এসেছে।
মামনি রুমে এসে আয়নার সামনে বসে আছে চুপটি করে। আর বারবার আয়নায় নিজেকে দেখছে।
কোথায় কোনো কমতি হলো নাকি।

বিকাল থেকে কাজ শেষ করে নিজের ইচ্ছে মতো সেজেছে মামনি। প্রশান্তর কিনে আনা শাড়িটাও সে পরেছে। শুধু মাত্র প্রশান্তর জন্য। আর এই প্রশান্ত কিনা, একবারও কিচ্ছু জিজ্ঞেস করলো না।

মামনির বড্ড রাগ হলো তাঁর নিজের উপর। মাথা নিচু করে বসে আছে মামনি। এদিকে আর বিছানায় শুয়ে থাকতে পারছেনা প্রশান্ত। মামনি যেন প্রশান্তকে চুম্বকের মতো টানছে। বার বার বলছে, তুই মামনির কাছে যা। তাঁকে জড়িয়ে ধর। সে তোর জন্যই এমন করে সেজেছে।

ধীরে পায়ে প্রশান্ত মামনির পাশে গিয়ে দাঁড়ালো। মামনি বুঝতেই পারেনি তাঁর পিছনে কেউ আছে।
প্রশান্তর খুব ইচ্ছে করছিল পিছন থেকে জড়িয়ে ধরে। কিন্তু একটা অজানা কারণে পারছেনা।
তবুও সকল বাধাকে ডিঙিয়ে মামনিকে জড়িয়ে ধরলো।

মামনি চমকে উঠলো। নিজেকে ছাড়িয়ে নিয়ে দেখে প্রশান্ত তাকে জড়িয়ে ধরছে। বেশ অবাক হলো মামনি। মামনির মনের ভিতর লুকিয়ে থাকা ভালবাসাটা লাফিয়ে উঠতে শুরু করলো।
 
মামনিও আবার প্রশান্তকে জড়িয়ে ধরলো।
আসলে রাগ, অভিমান লুকিয়ে রাখা যায়, কিন্তু ভালবাসা লুকিয়ে রাখা যায় না। 
ভালবাসা প্রতিদিন নতুন করে শুরু হয়।

প্রশান্ত মামনিকে নিজের বুকের মধ্যে জড়িয়ে ধরে  মামনির সমস্ত শরীরে ক্রমাগত চুম্বন করতে শুরু করলো। মামনিও প্রশান্তর সমস্ত শরীরে হাত বোলাতে শুরু করলো।

এরপর প্রশান্ত ঘরের আলো নিভিয়ে দিলো এবং উভয়ে ভালোবাসার চরম খেলায় লিপ্ত হলো।

Bangla Golpo টি পড়ে যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে পরে অবশ্যই গল্প টিকে বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করবেন এবং মন্তব্য করে জানাবেন।
WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now

Leave a Comment